সেরা পেস অ্যাটাক কোন দেশের? সেরা পেস অ্যাটাক কোন দেশের?


ছবি: সংগৃহীত

এবারের বিশ্বকাপে সেরা পেস বোলিং অ্যাটাক কোন দেশের? কোন পেসাররা ছড়ি ঘোরাবেন এবারের বিশ্বকাপে? ভারত-পাকিস্তানের পেস অ্যাটাক আলোচনায়, এমনকি বাংলাদেশও স্বপ্ন দেখে তাদের পেস অ্যাটাক দিয়ে প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করতে। তবে অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ড, নিউজিল্যান্ড, দক্ষিণ আফ্রিকারও রয়েছে দুর্দান্ত পেস অ্যাটাক।

বড় টুর্নামেন্টে সবসময়ই দলের মূল কাণ্ডারি হতে দেখা যায় পেসারদের। ফলে বাড়তি সুবিধাও পায় দলগুলো। বর্তমানে ওয়ানডে র‍্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষ ৩-এ দাপট ধরে রেখেছে পেস বোলাররা। আসন্ন বিশ্বকাপে পেসারদের ঝড়ো বোলিং দেখতে মুখিয়ে থাকবে ক্রিকেটপ্রেমীরা।

সদ্য সমাপ্ত এশিয়া কাপের ফাইনালে মোহাম্মদ সিরাজের বোলিং তাণ্ডবে শ্রীলঙ্কাকে হারিয়ে শিরোপা ঘরে তুলে নেয় ভারত। ৭ ওভারে ২১ রানের খরচায় ৬ উইকেট নেন সিরাজ। একই সাথে আসরের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ১০ উইকেট নেয়া এই পেসার হন ফাইনালের ম্যাচ সেরা। এমন পারফরমেন্সে ৮ ধাপ এগিয়ে দ্বিতীয়বারের মতো শীর্ষস্থান দখল করে নিয়েছেন এই ভারতীয় পেসার। এছাড়াও তাদের দলে রয়েছে মোহাম্মদ শামি ও জাসপ্রিত বুমরাহ’র মতো পেসার।

পেস অ্যাাটাকে বেশ এগিয়ে মাইটি অস্ট্রেলিয়া। ইতোমধ্যেই ওয়ানডে র‍্যাঙ্কিংয়ের ২-এ আছেন জশ হ্যাজেলউড। এছাড়াও তাদের রয়েছে মিচেল স্টার্ক , প্যাট কামিন্স এর মতো সেরা পেস ইউনিট।

এশিয়া কাপে পাকিস্তানের পেস অ্যাটাকে আতঙ্কিত হয়েছিল বাকি দলগুলো। নাসিম শাহ, শাহিন শাহ আফ্রিদি ও হারিস রউফের মতো পেস ত্রয়ীর কাছে অসহায়ত্ব বরণ করেছিল বাকি দলগুলো। যদিও বিশ্বকাপ থেকে ছিটকে গেছেন নাসিম শাহ। তবে তাদের রয়েছে হাসান আলীর মতো চমৎকার পেসার।

নিউজিল্যান্ডের রয়েছে ট্রেন্ট বোল্ট, ওয়ানডে র‍্যাঙ্কিংয়ে যার অবস্থান ৩ নম্বরে। এছাড়াও আছেন টিম সাউদি ও লকি ফার্গুসন। প্রতিপক্ষ দলের চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়াতে পারেন এই তিন পেসার।

শক্তিশালী পেসারদের তালিকায় পিছিয়ে নেই বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ড। ক্রিস ওকস, মার্ক উড ও স্যাম কারানের মতো তারকা পেসার নিয়ে সাজানো হয়েছে এবারের বিশ্বকাপ স্কোয়াড।

কাগিসো রাবাদা, লুনগি এনগিডিদের নিয়ে গড়া হয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকার ওয়ানডে বিশ্বকাপের স্কোয়াড। আসরে বাকি দলগুলোর চাইতেও কোনো অংশে কম যাননা তারা। তবে ইনজুরিতে ছিটকে গেছেন আনরিখ নরকিয়ার মতো শক্তিশালী পেসার।

পেস বোলিংয়ে শক্তিমত্তায় পিছিয়ে নেই বাংলাদেশও। গত চার বছরে ওয়ানডেতে পেস আক্রমণে দ্বিতীয় স্থানে থাকা টাইগার পেসারদের ৪৫ ম্যাচে শিকার ১৮৯ উইকেট। প্রতি উইকেট তুলে নিতে তাসকিনদের ৩১.৫ বল আর ২৮.৩৩ রান খরচ করতে হয়েছে। তবে ইকোনমি রেটটা ইর্ষণীয়, ৫.৩৮। ইকোনমিতে টাইগারদের তুলনায় কেবল এগিয়ে অস্ট্রেলিয়া ও ইংল্যান্ড।

তাসকিন আহমেদ, হাসান মাহমুদ, মোস্তাফিজুর রহমান, শরিফুল ইসলামদের নিয়ে এবারের বিশ্বকাপে চমক দেখানোর অপেক্ষায় বাংলাদেশ।

/আরআইএম





Source link

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*