মেসির সঙ্গে সমস্ত লড়াই শেষ- চিরপ্রতিদ্বন্দ্বিকে নিয়ে কী বললেন রোনাল্ডো? – All the battles with Lionel Messi are over


শুভব্রত মুখার্জি: বিশ্ব ফুটবলের নিঃসন্দেহে দুই মহাতারকা লিওনেল মেসি এবং ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো। দীর্ঘ কয়েক দশক ধরে তাদের টানটান লড়াইয়ের সাক্ষী থেকেছে ফুটবল বিশ্ব। কখনও ক্লাবের জার্সিতে, আবার কখনও দেশের জার্সিতে মাঠ কাঁপিয়েছেন দুজনে। ফুটবলে বিশেষ করে ইউরোপীয়ান ফুটবলে দুই কিংবদন্তির লড়াই ও প্রতিদ্বন্দ্বিতা ছিল তুল্যমূল্য। দুই তারকাই এখন তাদের ফুটবল কেরিয়ারের একেবারে শেষ লগ্নে এসে উপস্থিত হয়েছে। এই মুহূর্তে আর্জেন্তাইন মহাতারকা মেসির বয়স ৩৬, আবার অপরদিকে পর্তুগিজ মহাতারকা ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডোর বয়স ৩৮। ফুটবল মাঠে কয়েক দশকের বেশি সময় প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছেন লিওনেল মেসি ও রোনাল্ডো। এই মুহূর্তে দুই তারকা খেলছেন দুই ভিন্ন ভিন্ন লিগে। মেসি যখন মাতাচ্ছেন মেজর লিগ সকারের মঞ্চ, তখন রোনাল্ডো ব্যস্ত সৌদি প্রো লিগে। ফলে এমন অবস্থায় যে দুই তারকার মধ্যে কোনও রকম কোন প্রতিদ্বন্দ্বিতা ফুটবল মাঠে যে আর সম্ভব নয় তা জানিয়ে দিয়েছেন রোনাল্ডো।

প্রসঙ্গত স্প্যানিশ লা লিগাতে দীর্ঘ কয়েক বছর প্রায় একসঙ্গে খেলেছেন মেসি এবং রোনাল্ডো। মেসি খেলেছেন বার্সেলোনার হয়ে, আর অপরদিকে রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে খেলেছেন রোনাল্ডো। ২০১৮ সালে রোনাল্ডো রিয়াল মাদ্রিদ ছেড়ে জুভেন্তাসে যোগ দেন। কার্যত সেই সময় থেকেই দুজনের সরাসরি প্রতিদ্বন্দ্বিতা অনেকটাই কমে যায়। উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগে ছাড়া দেখা হওয়ার সম্ভাবনা একেবারেই ছিল না। তারপর থেকেই দুই তারকা ভিন্ন ভিন্ন দেশের লিগে খেলছেন। তাই কেরিয়ারের শেষ লগ্নে দাঁড়িয়ে এখন কীসের প্রতিদ্বন্দ্বিতা! পর্তুগিজ কিংবদন্তি রোনাল্ডোর মত সেটাই। পর্তুগালের সংবাদমাধ্যম ‘রেকর্ড’কে দেওয়া সাক্ষাৎকারে এমনটাই বলেছেন তিনি। রোনাল্ডো জানিয়েছেন মেসির সঙ্গে তাঁর সমস্ত প্রতিদ্বন্দ্বিতা শেষ হয়েছে। পাশাপাশি তিনি এটা জানাতেও ভোলেননি যে দুজন মিলে ‘ফুটবলের ইতিহাস পাল্টেছেন।’

বিষয়টি নিয়ে বলতে গিয়ে ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো জানিয়েছেন, মেসিকে আর প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে দেখেন না তিনি। তিনি বলেছেন, ‘আমি বিষয়টি এভাবে একেবারেই দেখি না। দুজনের প্রতিদ্বন্দ্বিতা শেষ হয়েছে। এই প্রতিদ্বন্দিতা খুব ভালোই ছিল। দর্শকেরা খুব পছন্দ করতেন এই প্রতিদ্বন্দ্বিতা। রোনাল্ডোকে যাঁরা পছন্দ করেন তাঁদের মেসিকে ঘৃণা করার কোন‌ জায়গা নেই। আমি বলব বরং এর উল্টোটাই করা উচিত। আমরা ভালোই করেছি। দুজনে মিলে আমরা ফুটবলের ইতিহাস পাল্টেছি। গোটা বিশ্বেই আমাদেরকে সম্মান করা হয়। আর এই বিষয়টাই সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ।’

ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো আরও যোগ করে বলেন, ‘মেসি তাঁর পথ অনুসরণ করেছে। আমি আমার পথ অনুসরণ করেছি। সেটা ইউরোপের বাইরে হলেও সমস্যা নেই। কারণ মেসি তার জায়গায় ভালো পারফরম্যান্স করছে। আর আমিও আমার জায়গায় ভালো পারফরম্যান্স করছি। আমি আসলে প্রতিদ্বন্দ্বিতাকে ওইভাবেই দেখিনা। আমরা অনেকবারেই মঞ্চ ভাগ করেছি একে অপরের সঙ্গে। সেটা প্রায় ১৫ বছর ধরে আমরা করেছি। আমরা যে একে অপরের বন্ধু তা আমি বলছি না। কারণ কখনও মেসির সঙ্গে ডিনার করতে বসিনি আমি। পেশাদার দৃষ্টিকোণ থেকে আমরা সহকর্মী এবং একে অপরকে সম্মান করি।’

প্রসঙ্গত দুজনে মিলে বর্ষসেরার পুরস্কার জিতেছেন মোট ১২ বার। বর্তমান সময়ের পেশাদার ফুটবলারদের মধ্যে মেসি-রোনাল্ডোই পেশাদার ফুটবলে ৮০০’র বেশি গোল করেছেন। দুজনে মিলে মোট ৭৯টি ট্রফিও জিতেছেন। এক দশকের বেশি সময় ধরে মেসি সেরা না রোনাল্ডো তা নিয়ে চরম বিতর্ক হয়েছে। কিন্তু সেই সব দিন এখন অতীত। ইউরোপ ছেড়ে গত জানুয়ারিতে সৌদি প্রো লিগের দল আল নাসেরে যোগ দেন রোনাল্ডো। অন্যদিকে মেসিও ইউরোপ ছাড়েন গত জুলাইয়ে। আর্জেন্তাইন বর্তমানে পিএসজি ছেড়ে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ইন্টার মায়ামির হয়ে মেজর লিগ সকারের মঞ্চ মাতাচ্ছেন। মায়ামির হয়ে মেসি জিতেছেন লিগস কাপ। আবার অন‌্যদিকে রোনাল্ডো আল নাসেরের হয়ে জিতেছেন আরব ক্লাব চ্যাম্পিয়ন্স কাপ।



Source link

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*