ডালহৌসিকে হারিয়ে কলকাতা লিগের সুপার সিক্সে জায়গা পাকা করে ফেলল মহমেডান


ডুরান্ড কাপের গ্রুপ লিগ থেকে ছিটকে যাওয়াটা হজম করতে পারেনি মহমেডান স্পোর্টিং। গোলপার্থক্যে পিছিয়ে থাকার জন্যই তাদের ছিটকে যেতে হয়েছিল। তবে কলকাতা লিগে নিজেদের ছন্দ ধরে রেখেই সুপার সিক্সে পৌঁছে গেল মহমেডান স্পোর্টিং।

সোমবার নিজেদের ঘরের মাঠে ডালহৌসি এসি-র মুখোমুখি হয়েছিল মহমেডান। এই দিন অপেক্ষাকৃত কম শক্তিশালী দলটিকে ৩-০ গোলে হারিয়ে সুপার সিক্সে নিজেদের জায়গা পাকা করে ফেলল সাদা-কালো ব্রিগেড। সদ্য সমাপ্ত ডুরান্ড কাপে ‘গোল্ডেন বুট’ জয়ী ডেভিড লালহানসঙ্ঘা এদিন জোড়া গোল করেছেন। এছাড়া ডেটল মৈরাংথেম একটি গোল করেন।

ডুরান্ড কাপের পরে মহমেডানের কোচ বদলে গিয়েছে। ডুরান্ড থেকে ছিটকে যাওয়ার পরে মেহরাজউদ্দিন ওয়াডুকে তাড়িয়ে দেয় সাদা-কালো শিবির। তাঁর বদলে নতুন কোচ হয়ে এসেছেন আন্দ্রে চের্নিশভ। এদিন চের্নিশভের কোচিংয়েই সুপার সিক্সে জায়গা করেন নিল মহমেডান।

সাদা-কালো জার্সিতে ডেভিড দুরন্ত ছন্দ রয়েছেন। সোমবার কার্যত তাঁর সৌজন্যেই কলকাতা লিগের শেষ ছয়ে জায়গা পাকা করে ফেলল সাদা-কালো ব্রিগেড। ম্যাচ শুরুর ৩৫ মিনিটের মধ্যেই দলকে ২-০ এগিয়ে গেন ডেভিড। এতেই মানিক ভাবে ধাক্কা খায় ডালহৌসি।

মহমেডান এদিন শুরু থেকেই আক্রমণাত্মক মেজাজে ছিলেন। ম্যাচের ২৩ মিনিটের মাথায় তিনি প্রথম গোল করে দলকে এগিয়ে দেন। এর পর ৩৪ মিনিটে দ্বিতীয় গোলটি করেন তরুণ তারকা। ডেভিডের হাত ধরেই বিরতিতে ২-০ এগিয়ে গিয়েছিল মহমেডান।

২-০ এগিয়ে থাকায় মহমেডান আত্মবিশ্বাসী ছিল। দ্বিতীয়ার্ধেও তারা আক্রমণাত্মক মেজাজেই ফুটবল খেলতে থাকে। নিজেদের মধ্যে ছোট-বড় পাস খেলে একাধিকবার ডালহৌসির রক্ষণ ভেঙে গোলের কাছাকাছি পৌঁছে গিয়েছিল। তবে সে ভাবে বিশেষ কিছু করে উঠতে পারেনি মহমেডান। দ্বিতীয়ার্ধে তারা একাধিক সুযোগ নষ্ট করে বসে থাকে। এই সুযোগগুলো হাতছাড়া না হলে অন্তত ৫-০ গোলে জিততে পারত মহমেডান। ম্যাচের একেবারে শেষ মুহূর্তে (৮৭ মিনিট) একটি গোল করেন ডেটল। 

ডালহৌসি সেভাবে গোলের সুযোগই তৈরি করতে পারেনি। যার ফলে ৩-০ ম্যাচ জিতে মাঠ ছাড়ে সাদা-কালো ব্রিগেড।



Source link

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*