আবারও বৃষ্টির বাগড়া ভারত-পাকিস্তান ম্যাচে


ছবি: টুইটার

ভারত-পাকিস্তানের হাই ভোল্টেজ ম্যাচে রিজার্ভ ডের দিনও বারবার বাগড়া দিচ্ছে বৃষ্টি। পাকিস্তানের ইনিংসে আবারও বৃষ্টির বাগড়ায় ম্যাচ আপাতত বন্ধ রয়েছে। বৃষ্টিতে খেলা বন্ধ হওয়ার আগ পর্যন্ত ৪৪ রান তুলতে দুই উইকেট খুইয়েছে বাবরের দল।

সোমবার (১১ সেপ্টেম্বর) কলম্বোর প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামে নির্ধারিত সময়ের প্রায় ১ ঘণ্টা ৪০ মিনিট পর গড়িয়েছে ম্যাচ। এরপর আর বৃষ্টিমশাইকে দেখা না গেলেও পাকিস্তান ইনিংসের ১১ ওভার গড়াতে না গড়াতেই আবার হাজির বৃষ্টি। ওপেনার ইমাম-উল-হক ফিরে গেছেন ৯ রানে এবং অধিনায়ক বাবর ১০ রানে। ফখর জামান ও মোহাম্মদ রিজওয়ান অপরাজিত রয়েছেন যথাক্রমে ১৪ ০ ১ রানে। ভারতের হয়ে ১টি করে উইকেট নিয়েছেন জসপ্রীত বুমরাহ ও হার্দিক পান্ডিয়া।

এর আগে, ভিরাট কোহলি ও লোকেশ রাহুলের জোড়া সেঞ্চুরিতে ভারত তাদের ইনিংস শেষ করে ৩৫৬ রানে। আজ রিজার্ভ ডেতে ব্যাটিংয়ে নেমে শুরু থেকেই আগ্রাসী ক্রিকেট খেলেছেন ভারতীয় দুই ব্যাটিং স্তম্ভ বিরাট কোহলি ও লোকেশ রাহুল। পাকিস্তানের বিপক্ষে বিরাট কোহলি বরাবরই ভালো খেলেন। কলম্বোর প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামও কোহলির রেকর্ডগাঁথা সমৃদ্ধ করে বরাবরের মতো। কোহলির সঙ্গে জুটি বাঁধেন রাহুল। দলকে দুর্দান্ত এক সেঞ্চুরি উপহার দেন চোট সারিয়ে প্রত্যাবর্তন করা এই ব্যাটার। তার পরেই সেঞ্চুরি করেন বিরাট কোহলি। কেএল রাহুল করেন ১০৬ বলে ১১১ রান এবং কোহলি খেলেন ৯৪ বলে ১২২ রানের দুর্দান্ত ইনিংস। আর কোনো উইকেট পড়তে না দিয়ে নির্ধারিত ওভার শেষে তারা দুজনই থাকেন অপরাজিত।

সেঞ্চুরি করার আগে কোহলি ছুঁয়ে ফেলেন তেরো হাজার রানের মাইলফলক। ইনিংসের হিসেবে ওয়ানডে ক্রিকেটে দ্রুততম ১৩ হাজার রানের রেকর্ড এখন বিশ্বের অন্যতম সেরা এই ব্যাটারের। ২৬৭ ইনিংসে এই রেকর্ড গড়েন তিনি। আরেক ভারতীয় কিংবদন্তি শচীন টেন্ডুলকার ১৩ হাজার রান ছুঁয়েছেন ৩২১ ইনিংসে। রিকি পন্টিং (৩৪২ ইনিংস), কুমার সাঙ্গাকারা (৩৬৩ ইনিংস) ও সনাৎ জয়সুরিয়াও (৪১৬ ইনিংস) রয়েছেন এই ক্লাবে।

এশিয়া কাপে সুপার ফোরের এই হাই ভোল্টেজ ম্যাচ জিততে হলে রানের পাহাড় টপকাতে হবে পাকিস্তানকে।

/এএম





Source link

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*